Every life matters, we do care for our patients

অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিসে (Ambulance Services) যে সকল সেবা সমূহ দেয়া হয় :

অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিসের (Ambulance Services )মাধ্যমে মাহির অক্সিজেন সিলিন্ডার ঢাকা ও ঢাকার বাইরে বাংলাদেশের সর্বত্র স্বল্প মূল্যে রোগীদের আনা নেওয়ার সেবা দিয়ে আসছে। খবর পাওয়া মাত্রই আমাদের অ্যাম্বুলেন্স রোগীর ঠিকানায় দ্রুত পৌছে যায়। নিরাপদে রোগীকে হাসপাতালে কিংবা বাসা-বাড়িতে নিয়ে যাওয়া ও নিয়ে আসাই আমাদের মূল উদ্দেশ্য।
আমাদের অ্যাম্বুলেন্সগুলো সহজেই যানজট উপেক্ষা করে শহরের যেকোন অলি-গলি দিয়ে দ্রুত রোগীর কাছে চলে যেতে পারে। এছাড়া আমাদের প্রতিটি অ্যাম্বুলেন্সে রয়েছে এসি/নন-এসি সুবিধা ও অক্সিজেনের ব্যবস্থা। কার্ডিয়াক অ্যাম্বুলেন্স, আইসিইউ অ্যাম্বুলেন্স, লাশবাহী ফ্রিজিং অ্যাম্বুলেন্সসহ সকল প্রকার অ্যাম্বুলেন্সই আপনারা আমাদের কাছে পেয়ে যাচ্ছেন। এছাড়া এই অ্যাম্বুলেন্সগুলোর সুবিধা হচ্ছে রোগী ছাড়াও এখানে ৩ থেকে ৪ জন বসতে পারবে। করোনাকালীন এই কঠিন সময়ে সুরক্ষা ও নিরাপত্তা বজায় রেখে আমাদের অ্যাম্বুলেন্স গুলো ২৪ ঘণ্টা এই Ambulance Services সার্ভিস দিয়ে আসছে।

এ ছারাও বাসায় নার্সিং যে সকল সেবা সমূহ দেয়া হয়:

  • সেবক সেবিকাগণ যথা সময়ে কর্মস্থলে উপস্থিত থাকবে।
  • ব্লাড প্রেসার, পালস,জ্বর, গ্লুকোজ , শ্বাস-প্রশ্বাস ইত্যাদি সঠিক সময়ে পরিমাপ করবে।
  • ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী সঠিক সময়ে, পরিমানমত, নির্ভুল ঔষধ সেবন করাবে।
  • ঘুম থেকে তুলে মুখ মন্ডল সুন্দর করে পরিস্কার এবং অবশ্যই চোখের যন্ত নিবে।
  • সঠিক সময়ে গোসল, হাত, পা এবং পিঠের যন্ত নিবে।
  • ২/৩ দিন পর পর সেভ ক্লীন করাবে এবং সময় মত হাত ও পায়ের নখ কাটে দিবে।
  • রোগী যে ভাবে থাকতে সাচ্ছন্দবোধ করে তাকে সে ভাবেই বসিয়ে বা শুইয়ে রাখবে।
  • চলা ফেরায় সাহায্য করবে এবং  অতি সতর্কতার সাথে সর্বদা পাশে থাকবে।
  • সঠিক সময়ে পরিমান মতো খাবার খাওয়াবে এবং মুখে খাবার খেতে না পারলে এন জি টিউব বা যে কোন উপায়ে বার বার খাবার খাওয়ানোর চেষ্টা করবে।
  • রোগীর শারীরে কোন প্রকার বেডসোর বা ক্ষত থকলে অবশ্যই সব সময় নজর রাখবে, প্রয়োজনে ২/৩ ঘন্টা পর পর পাশ পরিবর্তন করবে এবং অবস্থা বুঝে ড্রের্সিং করবে।
  • রোগীকে টয়লেটে নিয়ে যেতে সাহায্য করবে। বিছানায় পায়খানা, প্রসাব হলে অবশ্যই পরিস্কর করবে। পায়খানা প্রস্বাব ঠিকমত হয় কিনা তা লক্ষ্য রাখবে।
  • এন জি টিউব, ক্যাথেটার থাকলে অবশ্যই যত্ন সহকারে খেয়াল রাখবে।
  • প্রত্যেক দিন ২/৩ বার হাটাবে এবং রোগীর চাহিদানুযায়ী শরীর, হাত ও পা ম্যাসাজ বা ব্যায়াম করিয়ে দিবে। 
  • রোগীর ব্যবহৃত কাপর, বিছানাপত্র গুছিয়ে রাখবে।
  • প্রয়োজনীয় মেডিক্যাল সরঞ্জাম অবশ্যই যন্ত সহকারে পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখবে।
  • রোগীর অভিবাভকদের সাথে সম্মানজনক ব্যবহার করবে ও  তাদের পরামর্শ অনুযায়ী সেবা প্রদান করে।

আমাদের সম্পর্কে গুরুত্ব পূর্ন কিছু প্রশ্নঃ

মাহির অক্সিজেন সিলিন্ডার সেই চাহিদা পূরণ করে যা অন্য কোনো নার্সিং হোম সার্ভিস পারে না। আমাদের কর্মীরা এবং প্রশিক্ষিত নার্সরা রোগীদের প্রতি ভদ্র এবং সহানুভূতিশীল। আমরা আপনার বাড়িতে বিশ্বমানের চিকিৎসা প্রযুক্তি নিয়ে এসেছি।

সারা বাংলাদেশে নার্সিং হোম পরিষেবা নিয়ে আমরা আছি আপনার পাসে। আপনি কি ঢাকা বা বাংলাদেশের অন্য যে কোন জেলায় হোম কেয়ার সার্ভিস খুঁজছেন ? আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন এখনই।

আপনার কর্ম ব্যস্ত জীবনে আপনার অসুস্থ বাবা-মা কিংবা কাছের মানুষদের নিয়ে চিন্তিত আছেন.? আর নয় দুশ্চিন্তা আমরা আছি আপনার পাশে ২৪/৭।

  • একটি সংস্থার সাথে কাজ করা নিরাপত্তা জোরদার করে।যদি কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে তাহলে এজেন্সি তদন্তের জন্য দায়বদ্ধ থাকবে। এমনকি নার্স অসুস্থ হয়ে পড়লে বা রোগীর কাছে যেতে না পারলেও এজেন্সি প্রতিস্থাপনের ব্যবস্থা করতে পারে। এইভাবে, আপনি নিশ্চিত হতে পারেন যে রোগীর সাথে সবসময় কেউ থাকবে।
  •   চুরি, ডাকাতির মতো ভয়ঙ্কর কিছু ঘটলে এজেন্সি দায়ী থাকবে। নিরাপত্তা নিশ্চিত করা তাদের দায়িত্ব।
  • নার্সিং হোম কেয়ার সংস্থার অধীন নার্সরা পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত, যেকোনো সংকটজনক পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য পর্যাপ্ত জ্ঞান এবং অভিজ্ঞতা আছে।অন্যদিকে, একজন পৃথক নার্সের নতুন দায়িত্ব সামলানোর জন্য ক্রমাগত তত্ত্বাবধানের প্রয়োজন হতে পারে।নার্সিং হোম সাপোর্ট এজেন্সিগুলি আপনাকে অগ্রগতি সম্পর্কে আপডেট করবে এবং প্রয়োজনীয় মতামত দেবে।
  • দৈনন্দিন কাজকর্ম- আমাদের নার্সরা রোগীদের দৈনন্দিন কাজকর্মে সহায়তা করার জন্য ভালভাবে প্রশিক্ষিত।টয়লেটের স্বাস্থ্যবিধি থেকে শুরু করে পুষ্টিকর খাবার, আমাদের নার্সরা সবই সম্পাদন করে।
  • সাহচর্য - একজন সঙ্গী থাকা প্রত্যেকের জন্য অত্যাবশ্যক।এটি বিশেষত বয়স্ক ব্যক্তিদের জন্য প্রযোজ্য যারা প্রায়শই একাকী বোধ করেন । বাড়িতে একজন নার্স নিয়োগ করা মানসিক স্বাস্থ্যকে উল্লেখযোগ্যভাবে পরিবর্তন করবে কারণ তারা একটি শক্তিশালী বন্ধন তৈরি করে।
  • ঔষধ ব্যবস্থাপনা- নার্সরা ঔষধের সময়সূচী পরিচালনা এবং সেগুলি রক্ষণাবেক্ষণে পেশাদার দায়িত্ব পালন করে।

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন